ইমরান খানের ঘরে স্পাই ক্যামেরা বসাতে গিয়ে ধরা খেল এক গৃহকর্মী


Sarsa Barta প্রকাশের সময় : জুন ২৭, ২০২২, ১০:৫০ অপরাহ্ণ /
ইমরান খানের ঘরে স্পাই ক্যামেরা বসাতে গিয়ে ধরা খেল এক গৃহকর্মী

পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে হত্যার জন্য নাকি ষড়যন্ত্র চলছে। এই গুজবের মধ্যে, ইমরান খানের বাসভবন বানি গালার একজন কর্মচারীর দ্বারা তার উপর গুপ্তচরবৃত্তির প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় মিডিয়া।

জানা গেছে, ওই কর্মচারী খানের ঘরে একটি স্পাই ক্যামেরা ইনস্টল করার চেষ্টা করছিলেন। সূত্রের বরাত দিয়ে পাকিস্তানের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম এআরওয়াই নিউজ জানিয়েছে যে বানি গালার একজন কর্মচারীকে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর বেডরুমে একটি ডিভাইস বসানোর জন্য অর্থ প্রদান করা হয়েছিল।

খানের বাড়ির অন্য একজন কর্মচারী ডিভাইসটি ইনস্টল করার বিষয়ে নিরাপত্তা দলকে অবহিত করার পরে গুপ্তচরবৃত্তির প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়। বানি গালার নিরাপত্তা দল ওই কর্মচারীকে আটক করে ফেডারেল পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে হত্যার ষড়যন্ত্রের গুজবের মধ্যেই এই ঘটনা ঘটল।

এর আগে থেকেই কথিত এই হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে শহরের বানি গালা সংলগ্ন এলাকায় নিরাপত্তা সংস্থাগুলিকে হাই অ্যালার্টে রাখা হয়েছিল। পিটিআই-এর অনেকেই দাবি করছেন যে ইমরান খানের জীবন ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। পিটিআই নেতা শেহবাজ গিল বলেছেন, ‘এই বিষয়ে, আমরা সরকার সহ সমস্ত প্রাসঙ্গিক সংস্থাকে জানিয়েছি।’

মিডিয়া পোর্টালের সাথে কথা বলার সময়, শেহবাজ গিল দাবি করেছেন, ‘ইমরান খানের একজন কর্মচারী প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর কক্ষ পরিষ্কার করতে গিয়ে একটি স্পাই ডিভাইস ইনস্টল করার চেষ্টা করেছিলেন। যার জন্য তাকে অর্থ প্রদান করা হয়েছিল। তথ্য পাওয়ার জন্য আমাদের লোকদের হুমকি দেয়া হচ্ছে। এই কাজটি ‘জঘন্য এবং দুর্ভাগ্যজনক’। পিটিআই নেতা আরও বলেছেন যে, ‘গ্রেপ্তার’ হওয়া কর্মচারী এই মুহূর্তে মুখ খুলতে অস্বীকার করেছেন।

এর আগে ২৩শে জুন দেশের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ ইমরান খানের কাছে ‘জীবনের হুমকির’ দাবি নাকচ করে দিয়েছিলেন। মিডিয়ার সাথে একটি কথোপকথনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন যে ইমরান খানের বিরুদ্ধে কোনও হুমকি ছিল না। সেই সঙ্গে তিনি জানান, ইমরান খানকে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন একই স্তরের নিরাপত্তা দেয়া হচ্ছে।

এর আগে, ইমরান খানের ভাগ্নে হাসান নিয়াজি বলেছিলেন যে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) প্রধানের যদি কিছু হয় তবে এই কাজটিকে পাকিস্তানের উপর আক্রমণ হিসাবে গণ্য করা হবে। পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ নেতা ফয়সাল ভাওদাও একই ধরনের দাবি করেছিলেন যে পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ‘দেশ বিক্রি করতে’ অস্বীকার করার কারণে তাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করা হয়েছিল।

সূত্র : দা প্রিন্ট

%d bloggers like this: