বিপাশা হায়াত ২৩ বছর আগে এই দিনে কনে সেজেছিলেন এভাবে


Sarsa Barta প্রকাশের সময় : জুলাই ২৪, ২০২২, ৬:১৪ পূর্বাহ্ণ /
বিপাশা হায়াত ২৩ বছর আগে এই দিনে কনে সেজেছিলেন এভাবে

বিবাহিত জীবনের ২৩ বছর পার হলো টেলিভিশন নাটকের জনপ্রিয় জুটি তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াতের। ১৯৯৯ সালের ২৩ জুলাই ভালোবেসে পারিবারিকভাবে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন তাঁরা। বিপাশার বাবা অভিনয়শিল্পী, নাট্যকার ও পরিচালক আবুল হায়াতের কাছ থেকে জানা গেল সেদিনের কিছু কথা

অভিনয়শিল্পী, নাট্যকার ও পরিচালক বাবা আবুল হায়াত তাঁর ফেসবুকে এই ছবি পোস্ট করে তৌকীর–বিপাশাকে বিবাহবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। আবুল হায়াত লিখেছেন, ‘শুভ বিবাহবার্ষিকী বিপাশা-তৌকীর। তোমাদের সুন্দর, শান্তির ও স্বস্তির জীবন কামনায়...। আম্মু-আব্বু’

অভিনয়শিল্পী, নাট্যকার ও পরিচালক বাবা আবুল হায়াত তাঁর ফেসবুকে এই ছবি পোস্ট করে তৌকীর–বিপাশাকে বিবাহবার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। আবুল হায়াত লিখেছেন, ‘শুভ বিবাহবার্ষিকী বিপাশা-তৌকীর। তোমাদের সুন্দর, শান্তির ও স্বস্তির জীবন কামনায়…। আম্মু-আব্বু’
ছবি : সংগৃহীত

বিপাশা হায়াত ও তৌকীর আহমেদ দুজনের বিয়ের অনুষ্ঠান যেহেতু একসঙ্গে হয়েছিল, তাই দুই পরিবার মিলে চার হাজার অতিথিকে দাওয়াত করেছিলেন। বাড়তি অতিথি হাজির হতে পারে, তাই এক হাজারজনের বাড়তি খাবারের ব্যবস্থা করে রেখেছিলাম। যা ভেবেছিলাম, হয়েছিলও তাই। সারা বাংলাদেশ থেকে লোকজন এসেছিল। যা বুঝেছিলাম, সেদিন বিয়েতে ছয়-সাত হাজার মানুষ এসেছিল। দাওয়াতে যারা প্রথমে এসেছিল, তারা একটু খেতে পেরেছিল। দাওয়াতের বাইরে লোক আসায়, পরে আর কেউ বসার জায়গাও পায়নি, খাওয়ার জায়গাও পায়নি। আমাদের দুই হাজার অতিথির খাবার বেঁচে যায়। বাইরের লোকজন যারা, তারা কেউ খেতে আসে নাই, শুধু তৌকীর–বিপাশাকে দেখতে এসেছিল। তখন তো তারা দুজন বাংলাদেশের টপ পপুলার তারকা। সবার ক্রেজ। বোঝাই গেল, কেউ খাবার থেকে আসেনি। আমাদের দাওয়াত দেওয়া কোনো অতিথিও অনুষ্ঠান মিস করেনি, সবাই এসেছিল

বিপাশা হায়াত ও তৌকীর আহমেদ দুজনের বিয়ের অনুষ্ঠান যেহেতু একসঙ্গে হয়েছিল, তাই দুই পরিবার মিলে চার হাজার অতিথিকে দাওয়াত করেছিলেন। বাড়তি অতিথি হাজির হতে পারে, তাই এক হাজারজনের বাড়তি খাবারের ব্যবস্থা করে রেখেছিলাম। যা ভেবেছিলাম, হয়েছিলও তাই। সারা বাংলাদেশ থেকে লোকজন এসেছিল। যা বুঝেছিলাম, সেদিন বিয়েতে ছয়-সাত হাজার মানুষ এসেছিল। দাওয়াতে যারা প্রথমে এসেছিল, তারা একটু খেতে পেরেছিল। দাওয়াতের বাইরে লোক আসায়, পরে আর কেউ বসার জায়গাও পায়নি, খাওয়ার জায়গাও পায়নি। আমাদের দুই হাজার অতিথির খাবার বেঁচে যায়। বাইরের লোকজন যারা, তারা কেউ খেতে আসে নাই, শুধু তৌকীর–বিপাশাকে দেখতে এসেছিল। তখন তো তারা দুজন বাংলাদেশের টপ পপুলার তারকা। সবার ক্রেজ। বোঝাই গেল, কেউ খাবার থেকে আসেনি। আমাদের দাওয়াত দেওয়া কোনো অতিথিও অনুষ্ঠান মিস করেনি, সবাই এসেছিল
ছবি : সংগৃহীত

২৩ বছরের দাম্পত্যজীবনে তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াত দুই সন্তানের বাবা–মা। তাঁদের বড় সন্তান আরীব আহমেদ এখন নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের একটি স্কুলে টুয়েলভ ক্লাসে পড়ছে। আর মেয়ে আরীষা আহমেদও সেখানকার একটি স্কুলে ক্লাস টেন–এ পড়ছে

২৩ বছরের দাম্পত্যজীবনে তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াত দুই সন্তানের বাবা–মা। তাঁদের বড় সন্তান আরীব আহমেদ এখন নিউইয়র্কের লং আইল্যান্ডের একটি স্কুলে টুয়েলভ ক্লাসে পড়ছে। আর মেয়ে আরীষা আহমেদও সেখানকার একটি স্কুলে ক্লাস টেন–এ পড়ছে
ছবি : সংগৃহীত

তৌকীর বিপাশা এখন আছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে। সেখানে তাঁরা নিজ নিজ ক্ষেত্রের কাজকর্ম নিয়ে নিজেদের ব্যস্ত রেখেছেন। কিছুদিন আগে নিজের আঁকা পেইন্টিংয়ের প্রদর্শনী করতে এক মাসের জন্য ঢাকায় এসেছিলেন বিপাশা হায়াত

তৌকীর বিপাশা এখন আছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে। সেখানে তাঁরা নিজ নিজ ক্ষেত্রের কাজকর্ম নিয়ে নিজেদের ব্যস্ত রেখেছেন। কিছুদিন আগে নিজের আঁকা পেইন্টিংয়ের প্রদর্শনী করতে এক মাসের জন্য ঢাকায় এসেছিলেন বিপাশা হায়াত
ছবি : সংগৃহীত

বড় সন্তান আরীব আহমেদের তোলা সেলফিতে মা–বাবা তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াত, ছোট বোন আরীষা এবং নানা আবুল হায়াত ও নানি শিরিন হায়াত

বড় সন্তান আরীব আহমেদের তোলা সেলফিতে মা–বাবা তৌকীর আহমেদ ও বিপাশা হায়াত, ছোট বোন আরীষা এবং নানা আবুল হায়াত ও নানি শিরিন হায়াত
ছবি : সংগৃহীত

অবকাশযাপনে দেশের বাইরে তৌকীর–বিপাশার সঙ্গে আছেন পরিবারের অন্য সদস্যরা

অবকাশযাপনে দেশের বাইরে তৌকীর–বিপাশার সঙ্গে আছেন পরিবারের অন্য সদস্যরা
ছবি : সংগৃহীত

২৩ বছর আগের এই দিনে এভাবে কনে সেজেছিলেন বিপাশা হায়াত

২৩ বছর আগের এই দিনে এভাবে কনে সেজেছিলেন বিপাশা হায়াত
ছবি : সংগৃহীত

বর–কনে বিপাশা হায়াত ও তৌকীর আহমেদ

বর–কনে বিপাশা হায়াত ও তৌকীর আহমেদ
ছবি : সংগৃহীত

বিনোদন অঙ্গনের আদর্শ একটি জুটি হিসেবে পরিচিত তৌকীর ও বিপাশা। দাম্পত্যজীবনের সুখে থাকার মূলমন্ত্রের কথা এভাবেই জানিয়েছিলেন তৌকীর, দাম্পত্যজীবনে মান-অভিমান পর্ব থাকবেই। কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারবে না যে তাদের কখনো কোনো বিষয়ে দ্বিমত কিংবা ঝগড়া হবে না। বিপাশা এবং আমার সম্পর্কের শুরু বন্ধুত্ব থেকে। এখনো আমরা একে অপরের ভালো বন্ধু। এমনকি আমাদের সন্তানদের কাছেও আমরা ভালো বন্ধু। দীর্ঘ দাম্পত্যজীবনে মনোমালিন্য হয়নি—এটা বলব না। হয়েছে, মিটেও গেছে। ঘরসংসারের বাইরে অভিনয়জীবন, নির্মাণ ও অন্যান্য কাজকর্ম করি। যা নিয়ে কখনো একমত হয়েছি, কখনো মতভেদও হয়েছে। আবার ছোটখাটো বিষয় নিয়ে কখনো কখনো মান-অভিমান হয়েছে। কে আগে বা পরে কার মান ভাঙিয়েছি, এটা বড় বিষয় নয়

বিনোদন অঙ্গনের আদর্শ একটি জুটি হিসেবে পরিচিত তৌকীর ও বিপাশা। দাম্পত্যজীবনের সুখে থাকার মূলমন্ত্রের কথা এভাবেই জানিয়েছিলেন তৌকীর, দাম্পত্যজীবনে মান-অভিমান পর্ব থাকবেই। কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারবে না যে তাদের কখনো কোনো বিষয়ে দ্বিমত কিংবা ঝগড়া হবে না। বিপাশা এবং আমার সম্পর্কের শুরু বন্ধুত্ব থেকে। এখনো আমরা একে অপরের ভালো বন্ধু। এমনকি আমাদের সন্তানদের কাছেও আমরা ভালো বন্ধু। দীর্ঘ দাম্পত্যজীবনে মনোমালিন্য হয়নি—এটা বলব না। হয়েছে, মিটেও গেছে। ঘরসংসারের বাইরে অভিনয়জীবন, নির্মাণ ও অন্যান্য কাজকর্ম করি। যা নিয়ে কখনো একমত হয়েছি, কখনো মতভেদও হয়েছে। আবার ছোটখাটো বিষয় নিয়ে কখনো কখনো মান-অভিমান হয়েছে। কে আগে বা পরে কার মান ভাঙিয়েছি, এটা বড় বিষয় নয়।
ছবি : সংগৃহীত
%d bloggers like this: