বগুড়া বিএনপি সম্মেলনকে ঘিরে জমজমাট


Sarsa Barta প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৪, ২০২২, ৬:১৪ পূর্বাহ্ণ /
বগুড়া বিএনপি সম্মেলনকে ঘিরে জমজমাট

এক যুগ পর বগুড়া জেলা বিএনপির সম্মেলন হতে যাচ্ছে। আগামী ২ নভেম্বর জেলা বিএনপির সম্মেলনকে ঘিরে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠনও করা হয়েছে। নির্বাচনে প্রার্থী হতে একাধিক প্রার্থী মাঠে নেমেছেন। বিভিন্ন আশশ্বাস দিয়ে নির্বাচনমুখী হয়ে পড়েছে জেলা বিএনপি। জেলা বিএনপির নেতারা বলছেন, উৎসবমুখর পরিবেশে বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

বগুড়া জেলা বিএনপির নেতা-কর্মিদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ২০১০ সালে সর্বশেষ জেলা বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে ২০১৯ সালের ১৫ মে মেয়াদোত্তীর্ণ বগুড়া জেলা বিএনপির নির্বাহী কমিটি ভেঙে দিয়ে বগুড়া-৫ আসনের সাবেক এমপি গোলাম মো. সিরাজকে আহ্বায়ক করে ৩১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়।

জেলা আহ্বায়ক কমিটি তৃণমূল পর্যায়ে কমিটি পুনর্গঠনের লক্ষ্যে ২০১৯ সালের ১৬ আগস্ট দলের সব ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, পৌরসভা ও উপজেলা কমিটি বিলুপ্ত করে। একই বছরের ৩১ আগস্টের মধ্যে উপজেলা ও পৌর শাখার ২৪টি সাংগঠনিক থানা শাখার আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। নেতা-কর্মীরা সম্মেলনমুখী হলে দলের আহ্বায়ক কমিটিতে আবারও পরিবর্তন ঘটে।

২০২১ সালের ১৩ নভেম্বর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক গোলাম মো. সিরাজের স্থলে আহ্বায়কের দায়িত্ব পান বগুড়া পৌরসভার মেয়র রেজাউল করিম বাদশা। এসব ঘটনার পর এবার জেলা বিএনপির সম্মেলনের দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হয়েছে। নির্ধারিত তারিখ মতে প্রায় ১ যুগ পর জেলা বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২ নভেম্বর। জেলা বিএনপির সম্মেলনের জন্য নির্বাচন পরিচালনা কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

নির্বাচন পরিচালনা উপদেষ্টা কমিটির সদস্য করা হয়েছে চার জনকে। সম্মেলন এগিয়ে আসায় ভাঙচুর নাশকতা কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে মামলা হামলায় ঝিমিয়ে পড়া বিএনপিতে বাতাস লাগতে শুরু করেছে। মামলায় গ্রেফতার আতঙ্কে পালিয়ে থাকা বিএনপির নেতা-কর্মীরা জামিন পেয়ে সামনে আসতে শুরু করেছে। অনেকেই আবারও মিছিল মিটিং এবং দলীয় কর্মসূচিতে সক্রিয় হয়ে উঠছেন।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের জন্মস্থান হিসেবে বগুড়াকে বিএনপির দুর্গ হিসেবে এখনো ধরা হয়। ভোটের রাজনীতিতে আওয়ামী লীগের চেয়ে এখনো বিএনপি অনেক এগিয়ে। আবার সরকারবিরোধী আন্দোলন-সংগ্রামে করে মামলা হামলায় বিপর্যস্ত বিএনপিতে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে। মামলা থাকায় দলীয় কার্যালয় আর আদালত পাড়া নিয়ে বেশি সময় কাটছে বিএনপির।

একরকম নুয়ে পড়া বিএনপিকে নতুন করে সাজিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চলছে। দলে নেতা-কর্মী বাড়ার কারণে আবারও সক্রিয় হয়ে উঠতে শুরু করেছে বগুড়ার বিএনপি। কার্যালয়ে আসছে বিএনপি নেতারা। প্রার্থী হতে অনেকেই কুশালাদি বিনিময় করছেন। কে কোন পদে নির্বাচন করছেন তা নিয়ে কানাঘুষা চলছে। একে অপরের সহযোগিতা চেয়ে নির্বাচনমুখী হতে যাচ্ছে দলের নেতা-কর্মীরা।

বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক রেজাউল করিম বাদশা জানান, জেলা কমিটির সম্মেলন এর তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। ২ নভেম্বর সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে বিএনপিকে আরও শক্তিশালী হিসেবেই বগুড়ায় অবস্থান করবে সব সময়। আর সব আন্দোলনে কাজ করে যাবে। মামলার কারণে অনেক নেতা-কর্মী কারাগারে এবং কেউ পালিয়ে রয়েছেন।

এখনো অনেক নেতার নামে অর্ধশত মামলা রয়েছে। দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতা-কর্মীদের দাবিয়ে রাখতে কৌশলে এই মামলা দিয়ে কোণঠাসা করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু বিএনপির নেতা-কর্মীরা দমিয়ে যাওয়ার নয়। সম্মেলন ঘিরে জেলা বিএনপির নেতা-কর্মীরা এখন উৎসবমুখর হয়ে আছে।

%d bloggers like this: