স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে গতিশীল নেতৃত্বের প্রতি আশার সঞ্চার


Sarsa Barta প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ২১, ২০২৩, ১০:৩৫ অপরাহ্ণ /
স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে গতিশীল নেতৃত্বের প্রতি আশার সঞ্চার

আলহাজ্ব মোঃ রবিউল হোসেনঃ

বৃক্ষের পরিচয় বৃক্ষের ফলে। মানুষের পরিচয় মানুষের কর্ম ফল নিয়ে। ভালো চিকৎসকের পরিচয় রুগির সুচিকিৎসায়। একজন সৎ মানুসের পরিচয় তাঁর চরিত্রবল। একজন দক্ষ রাজনীতিবিদের পরিচয় চৌকশ নেতৃত্ব। একজনদক্ষ রাজনীতিবিদ তিনিই যিনি স্বদেশ ও বিদেশ রাজনীতিতেও পারদর্শি।

বিশ্ব ব্যাংককে চ্যালেঞ্জ করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মানে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতা ও সাহসী ভূমিকা, উদ্বোধন, যোগাযোগ ব্যস্থার অভূত পূর্ব উন্নয়ন স্বদেশের ভাবমূর্তীকে করেছে গৌরবউজ্বল।

কর্ণফুলী টানেল, মেট্রোরেল, দৃশ্যমান হয়ে উঠা কক্সবাজার রেলস্টেশন, একাধিক ফ্লাইওভার, তৈরি হচ্ছে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও দৃষ্টিনন্দন পাকা সড়ক। দেখলে মনে হয় এযেন এক নতুন বাংলাদশ। করোনা যুদ্ধে বিশ্বের বড় দেশগুলো যখন ধরাশায়ী, অতিচমৎকার ভাবে বাংলাদেশ তখন এই মহামারি সামাল দিয়েছে।

কোভিডে দেশে মৃত্যুর হারও ছিল সহনীয় পর্যায়ে। পৃথিবীর বড় দেশগুলো যা পারেনি, বাংলাদেশ তা পেরেছে। সেই মহা দুর্যোগের কালেও অর্থনৈতিক পবৃদ্ধির হারও পড়তে দেয়নি বাংলাদেশ। ১০০টি ইকোনমিক জোন হয়েছে। মানুষ স্বচ্ছল হয়েছে আগের তুলনায় শতগুণ বেশি। ব্যবসায়ীরা ব্যবসা করতে পেরেছে নির্বিঘ্নে।

৩৫ হাজার গৃহহীনদের ইতোমধ্যে গৃহায়ন। ঘরে-ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি বাস্তাবায়ন। বিরুপ জলবায়ু আবহাওয়া প্রতিরোধে বিকল্প পদক্ষেপ গ্রহণ। বিনামূল্যে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বই বিতরণ এ সবইতো চৌকশ নেতৃত্বের অনন্য উদাহরণ।

স্বাস্থ্য খাতকে অভূত পূর্ব উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতিটি বিভাগে একটি করে মেডিকেল কলেজ স্থাপণের ঘোষণা। উপজেলা পর্যায়েও চিকিৎসার মান উন্নয়ন ও সরঞ্জম সরবরাহ, ইসলামী মূল্যবোধ ও সংস্কৃতি সম্পর্কে জ্ঞানবৃদ্ধি, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও নারী নির্যাতন বন্ধের পশাপাশি ধর্মের নামে বিভ্রান্তি দুরিকরণে সারাদেশে ৫৬৪টি মডেল মসজিদ নির্মানের পদক্ষেপ গ্রহণ। ইতোমধ্যে দু’ধাপে ১০০টি মডেল মসজিদের উদ্বোধন।

হাদিসকে মাস্টার্সের মর্যাদা দিয়ে ইসলামী আরবি বিম্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় গতীশলি চৌকস সুনেতৃত্বকে সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের পরাষ্ট্র দফতরের সহকারী মন্ত্রী ডোনাল লুর বাংলাদেশ সফর শেষে কূটনৈতিক সূত্রের খবরে বলা হয়েছে “স্বাধীনতার পর বাংলাদেশে ব্যাপক আর্থসামাজিক উন্নয়ন হয়েছে”।

ডিজিটাল থেকে আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ সৃষ্টিতে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার লক্ষ্য অর্জনে গতীশীল কার্যক্রমের একাধিক মেঘা প্রকল্প বাস্তবায়নে জনমনে যথেষ্ট আশার সঞ্চার হয়েছে।

আলহাজ্ব মোঃ রবিউল হোসেন, সাংবাদিক ও কলামিষ্ট

%d bloggers like this: